**রংপুর নাগরিক সমাজ(RNS) সংগঠনের নিউজ পোর্টাল rnsnews24.com এ স্বাগতম।  *** প্রতিনিধি নিয়োগ*** রংপুর বিভাগের সকল জেলা ও রংপুর জেলার সকল উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ- 01722-882770 ।  *** সবার আগে নির্ভুল সংবাদ পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন।
অনিয়মের স্বর্গরাজ্য রংপুর সিটি বাজার

অনিয়মের স্বর্গরাজ্য রংপুর সিটি বাজার

অনিয়মের স্বর্গরাজ্য রংপুর সিটি বাজার

রংপুর সংবাদদাতা॥ অনিয়মের স্বর্গরাজ্য রংপুর সিটি বাজার। যেখানে নিয়মের কোন বালাই নেই। এমন মন্তব্য করেছেন খোদ রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। উন্নয়নের দাবী নিয়ে গত ১৮ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দোকান বন্ধ রেখে হরতাল পালন করে সিটি বাজার ব্যবসায়ী সমিতি ও ব্যবসায়ীরা। এরই প্রেক্ষিতে আজ সোমবার (২৪ জানুয়ারী) দুপুর আড়াইটায় রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা সংবাদ সম্মেলন করে এ মন্তব্য করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মেয়র বলেন, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪.১৬ একর জমির উপরে সিটি বাজার প্রতিষ্ঠিত। এখানে ছোট বড় মিলিয়ে ১ হাজার ১ শ ১২ টি দোকান রয়েছে। যার ভাড়া মাত্র ৯০ টাকা থেকে শুরু করে ৬৭৫ টাকা ভাড়া পায় সিটি কর্পোরেশন। নগরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অবস্থিত এই বাজারের দোকানগুলোর ভাড়া এত কম যা সত্যি অবিশ^াস্য। এছাড়া ২০১৮ থেকে ২০২২ অর্থবছরে সিটি বাজার, সিটি বাজার সাইকেল স্টান্ড ও গণ শৌচাগার ইজারা হতে আয় প্রায় ২ কোটি ২৯ লক্ষ টাকা। এর বিপরিতে কঞ্জারভেন্সি শাখা, বিদ্যু শাখা ও প্রকৌশল শাখা হতে উন্নয়নমুলক কাজে মোট ব্যয় প্রায় ২ কোটি ৬৯ লক্ষ টাকা। যা ব্যয়ের হার ১১৭.৩৮ ভাগ। যেখানে সরকার নির্ধারিত ব্যয়ের পরিমান মাত্র ৪৫%। তা সত্বেও সিটি বাজার উন্নয়নে পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। গণসৌচাগার নির্মাণের কাজ শুরু হলে সমিতির নেতৃবৃন্দ নকশা মনঃপুত হয়নি মর্মে কাজ বন্ধ করে দেয়। পরে তাদের দাবী অনুয়ায়ী নতুন নকশায় কাজ চলমান রয়েছে যার ব্যয় ৬৩ লক্ষ টাকা। এছাড়া পানি নিস্কাশনের জন্য ৮৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ড্রেন ও ১ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকায় ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে। এতকিছু সুবিধার দেয়ার পরেও সিটি বাজার ব্যবসায়ী সমিতি ষড়যন্ত্রমুলক ও উদ্দেশ্যমুলকভাবে হরতাল পালন করে অর্বাচিনের মতো বক্তব্য রেখেছে নেতৃবৃন্দ। যা সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষকে হতবাক করেছে। আমরা সিটি পরিষদ ও আমি এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি। তিনি আরো বলেন, সিটি বাজার ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান ভাড়া পরিশোধ করে সেই মান্ধাত্তার আমলের হিসেবে। সেটাও কয়েক লক্ষ টাকা বাকী রয়েছে। এছাড়াও সমিতির নেতৃবৃন্দ অবৈধভাবে দোকানের সামনে দোকান বসিয়ে অনৈতিকভাবে আর্থিক সুবিধা গ্রহণ করছেন। সেই দোকানগুলো বাজারের ক্রেতা সাধারণের জন্য চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে। আমরা অচিরেই জেলা প্রশাসনের সহেযাগিতা নিয়ে এই অবৈধ দোকান পাট উচ্ছেদ করে ক্রেতা সাধারণের জন্য চলাচলের ব্যবস্থা করে দেয়া হবে। রংপুর সিটি কর্পোরেশন আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মেয়র, প্যানেল মেয়র, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি সবাইকে জানাতে আপনার স্যোস্যাল অ্যাকাউন্ট দিয়ে শেয়ার করুন




©২০২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। আর এন এস নিউজ ২৪.কম।