**রংপুর নাগরিক সমাজ(RNS) সংগঠনের নিউজ পোর্টাল rnsnews24.com এ স্বাগতম।  *** প্রতিনিধি নিয়োগ*** রংপুর বিভাগের সকল জেলা ও রংপুর জেলার সকল উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ- 01722-882770 ।  *** সবার আগে নির্ভুল সংবাদ পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন।
শিরোনাম :
কাউনিয়ায় পূজা উদযাপন কমিটির সাথে আইন শৃঙ্খলা বাহিনির মতবিনিময় সভা চাঁদাবাজি করতে গিয়ে আটক জেলা যুব মহিলা লীগের আহবায়কের স্বামী ইমরান কাউনিয়ায় চার জুয়ারু গ্রেফতার রংপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থীও মুক্তিযোদ্ধা পীরগাছায় ওপেন হাউজ ডে তে জনগণের কথা শুনলেন পুলিশ সুপার রংপুর অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা রংপুর ডিসি কার্যালয়ে প্রতি বুধবার গণশুনানি, উপকৃত হচ্ছেন মানুষ রংপুরে পুষ্টি উপর র্কমশালা অনুষ্ঠিত বৃহস্পতিবার রংপুর সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি নন্দন প্রধান ফটকের উদ্বোধন কাউনিয়ায় বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ বিষয়ক সমন্বয় সভা
রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আগুণ: ক্ষয়ক্ষতির আংশঙ্কা

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আগুণ: ক্ষয়ক্ষতির আংশঙ্কা

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আগুণ: ক্ষয়ক্ষতির আংশঙ্কা

জেলা প্রতিনিধি, রংপুর॥
রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এমআরআই, আল্ট্রাসনোগ্রাম ও ইসিজি কক্ষে আগুণ লাগার ঘটনা ঘটেছে। যদিও হাসপাতালের কর্মচারীরা দ্রুত সেই আগুণ নেভাতে সক্ষম হয়। পরবর্তিতে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট পৌঁছে আগুণের অবশিষ্ট অংশ নিভিয়ে ফেলেন। এ ঘটনায় এখনও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা সম্ভব হয়নি।

হাসপাতালের কর্মচারী সুত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হাসপাতালের নিচতলার আল্ট্রাসনোগ্রাম, এমআরআই ও ইসিজি কক্ষে থেকে হঠাৎ কালো ধোঁয়া বের হতে দেখেন কর্মচারীরা। ভেতরে আগুন ছড়িয়েছে সন্দেহে তারা ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। এরই মধ্যে কয়েকজন কর্মচারী কক্ষের দরজায় লাগানো তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে বৈদ্যুতিক সার্কিটের সুইচ বন্ধ করে দেন। পরে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট সেখানে অবশিষ্ট আগুন নিভিয়ে ফেলেন। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল বলে ধারণা করছেন কর্মচারীরা। হঠাৎ করে কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলী দেখে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।
হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডের নেপথ্যে অন্য কোনো কারণ রয়েছে কি না তার সঠিক তদন্ত দাবি করেছেন সচেতন মহল।
হাসপাতালের লিফটম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, সকালে হঠাৎ করে এমআরআই কক্ষ থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখি। এটা দেখে রোগির স্বজনরা অনেকেই ছুটোছুটি শুরু করেন। আমরা কয়েকজন ওই কক্ষের দরজার তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে বিদ্যুতের মেইন সুইচ বন্ধ করে দেই। এরপরই আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন সেখানে উপস্থিত হয়ে অবশিষ্ট আগুন নিভিয় ফেলেন।

রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের পরিচালক ডা. শরিফুল ইসলাম বলেন, ভবনটি অনেক পুরোনো হওয়ায় বৈদ্যুতিক ওয়্যারিংয়ে সমস্যা হচ্ছে। আমরা ধারণা করছি শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। তারপরও বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ক্ষতিয়ে দেখছি।

 

সংবাদটি সবাইকে জানাতে আপনার স্যোস্যাল অ্যাকাউন্ট দিয়ে শেয়ার করুন




©২০২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। আর এন এস নিউজ ২৪.কম।